Dr. Bashir Mahmud Ellias's Blog

Know Thyself

Antibiotic

Leave a comment

Antibiotic (এন্টিবায়োটিক) ঃ- কেবল সেই সব ঔষধকেই এন্টিবায়োটিক বলা হয় যারা রোগের সাথে সম্পর্কিত জীবাণুকে হত্যা বা জীবাণুর বংশবৃদ্ধি বন্ধ করতে পারে। সত্যি বলতে কি, এন্টিবায়োটিক গ্রুপের ঔষধসমূহ আবিষ্কৃত হওয়ার কারণেই এলোপ্যাথিক এখনও দুনিয়ায় টিকে আছে। সে যাক, গবৎপ ংড়ষ, Hepar sulph, কধষর সঁৎ, Silicea, চুৎড়মবহ কিংবা ঊপযরহধপবধ ধহমঁংঃরভড়ষরধ (শক্তি ৩০,২০০) ঔষধগুলিকে বিপদজ্জনক পরিস্থিতিতে হোমিও এন্টিবায়োটিকরূপে ব্যবহার করতে পারেন। এদের মধ্যে মার্ক সল এবং পাইরোজেনই মনে হয় সর্বোৎকৃষ্ট। শরীরের যে-কোন স্থানেই ইনফেকশন বা পূঁজ হউক না কেন, মার্ক সল তাকে নির্মূল করে দিবে। যে-কোন ধরনের ইনফেকশনের প্রথম দিকে প্রয়োগ করতে পারলে ঋবৎৎঁস চযড়ং (শক্তি ৩,৬,১২,৩০,২০০) সবচেয়ে ভালো ঔষধ। কিন্তু প্রথম দিকে প্রয়োগ করতে না পারলে আর ফেরাম ফসের উপর নির্ভর করা উচিত নয়। সাধারণত জ্বর, কাশি, ডায়েরিয়া, আমাশয়, নিউমোনিয়া প্রভৃতি মারাত্মক রোগে(ধপঁঃব ফরংবধংব) এলোপ্যাথিতে যে-সব এন্টিবায়োটিক ব্যবহৃত হয় ; তার তুলনায় হোমিওপ্যাথিতে ব্যবহৃত ব্রায়োনিয়া অধিক কাযর্কর। কাজেই বলা যায় ইৎুড়হরধ হলো পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ট এন্টিবায়োটিক। কেননা এসব নতুন রোগকে নিয়ন্ত্রণে আনতে এলোপ্যাথিক এন্টিবায়োটিকের যেখানে তিন থেকে সাতদিনের মতো লেগে যায়, সেখানে ব্রায়োনিয়া বা মার্ক সলের লাগে বেশীর পক্ষে তিন থেকে বারো ঘণ্টার মতো।

Author: bashirmahmudellias

I am an Author, Design specialist, Islamic researcher, Homeopathic consultant.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s