Dr. Bashir Mahmud Ellias's Blog

Know Thyself

Becoming a doctor_merits & demerits

Leave a comment

ডাক্তারী পেশার সুবিধা-অসুবিধা

আমাদের দেশে এস.এস.সি.-এইচ.এস.সি.-র রেজাল্ট বেরুলে মেধাবী শিক্ষার্থীদের সাক্ষ্যাতকার ছাপা হতে থাকে পত্রিকায়। তাতে ভবিষ্যতে কে কি হতে চায় বিষয়টিকে বেশ গুরুত্ব দিয়ে হাইলাইট করা হয়ে থাকে। ভবিষ্যত পেশা হিসেবে বেশীর ভাগ শিক্ষার্থী পছন্দ করে থাকে ডাক্তারী পেশাকে। চিকিৎসকের পেশা অবশ্যই একটি মেধাসমপন্ন লোকদের পেশা এবং সেবামুলক পেশা হিসেবে তারা মানুষের কাছে সম্মানেরও পাত্ররূপে গণ্য। কিন্তু বাস্তবতা হলো অধিকাংশ মানুষ প্রধানত দ্রুত ধনী হওয়ার উদ্দেশ্যেই ডাক্তার হতে চায়। যারা ডাক্তার হতে ইচ্ছুক তাদের প্রতি আমার উপদেশ হলো, কেবলমাত্র যাদের আর্তমানবতার সেবার মানসিকতা আছে, যারা রোগমুক্ত রোগীদের মুখে কৃতজ্ঞতার স্বগীয় হাসি দেখে আনন্দ পান এবং পরকালে আল্লাহর নিকট থেকে বিরাট পুরষ্কার পাওয়ার প্রত্যাশা করেন, একমাত্র তাদেরই ডাক্তারী পেশায় আসা উচিত। হ্যাঁ, প্রচুর টাকা তো আপনি উপার্জন করবেনই। মানুষের জীবনকে যারা সুস্থ-সুন্দর করার জন্য পরিশ্রম করে; লোকেরাও তাদের জীবনকে সুখী-সুন্দর করার ব্যবস্থা নিশ্চয় করবে। তাই শুধুমাত্র কাড়ি কাড়ি টাকা কামানো যাদের উদ্দেশ্য, তাদের ডাক্তারী পেশায় না এসে বরং ইঞ্জিনিয়ারিং, এম.বি.এ., একাউন্টিং, ব্যাংকিং, কমপিউটার, বিদেশগমণ, মার্কেটিং, ছোট-বড় ব্যবসায় আত্মকর্মসংস্থান প্রভৃতি পেশায় নিয়োজিত হওয়া উচিত। কারণ ঐসব পেশায় আরও দ্রুত ধনী হওয়ার সুযোগ রয়েছে। মুলত ডাক্তারী করে প্রচুর টাকা রোজগার করতে পারবেন ঠিকই; কিন্তু সেগুলো বেশীদিন ভোগ করে যেতে পারবেন না। কারণ অধিকাংশ ক্ষেত্রে ডাক্তারদের আয়ু হয় খুবই কম। প্রতিদিন শত শত রোগী নানারকম ভয়ঙ্কর ভয়ঙ্কর সব জীবাণু ডাক্তারদেরকে বিনা পয়সায় সরবরাহ করে যায়। বিশেষত নিঃশ্বাসের মাধ্যমে, হান্ডশ্যাকের মাধ্যমে, রোগীকে হাত দিয়ে স্পর্শের মাধ্যমে চিকিৎসকেরা প্রতিদিন অগণিত রোগ-ব্যাধির শিকারে পরিণত হন। তারপর আছে মহামারীর উৎপাত। মারাত্মক ধরণের মহামারীতে ডাক্তার, নার্স, ফার্মাসিষ্টদের মৃত্যুহার অন্যান্য পেশাজীবিদের চাইতে অনেক অনেক বেশী হয়ে থাকে। তাছাড়া অত্যধিক ব্যস্ততার কারণে ডাক্তাররা সময়মতো খেতেও পারেন না। সুস’ থাকার জন্য যতটা ব্যায়াম, বিশ্রাম এবং ঘুম দরকার, তারও সুযোগ অনেক সময় তাদের হয় না। ব্যস্ততার কারণে অনেকে নামাজ-রোজাও ঠিক মতো করতে পারেন না; ফলে ইহকালের সাথে সাথে পরকালও বিনাশ হয়। অত্যধিক ব্যসততার কারণে অনেক সময় বউ-ছেলে-মেয়ের সাথেও তাদের সুসম্পর্ক নষ্ট হয়ে যায়।

সন্তানদের যথেষ্ট সময় দিতে না পারার কারণে তারা ঠিক মতো মানুষ হতে পারে না। পত্রিকায় দেখা যায়, বড় বড় সন্ত্রাসী, দাগী আসামীদের অনেকেই ডাক্তারদের সন্তান। যথেষ্ট মেধা, ভালো একাডেমিক রেজাল্ট অথবা মুখস্ত বিদ্যায় ওস্তাদ হলেই কারো পক্ষে ভালো ডাক্তার হওয়া সম্ভব নয়। একজন সফল ডাক্তার হতে হলে আপনার মধ্যে ক্রিয়েটিভিটি বা সৃজনশীলতা থাকতে হবে। কেননা ডাক্তারী পেশার অর্ধেক হলো সাইন্স আর অর্ধেক হলো আর্ট। মানুষের শরীর এবং মন হলো মহাবিশ্বের সবচেয়ে জটিল যন্ত্র আর এগুলো নিয়ে যিনি কাজ করবেন তাকে অবশ্যই অলরাউন্ডার হতে হবে। ডাক্তারী পেশায় আসতে হলে অবশ্যই সাহসী হতে হবে, রক্ত দেখলে যে মাথা ঘুরে পড়ে যায় তার পক্ষে অন্য পেশায় নিয়োজিত হওয়া ভালো। রোগ-ব্যাধি সম্পর্কে ভালো জ্ঞান থাকার কারণে ডাক্তাররা যথেষ্ট সতর্কতা অবলম্বনের মাধ্যমে ছোট ছোট রোগের হাত থেকে অনায়াসে বেঁচে যান। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে পেশাগত কারণেই তারা এমন সব মারাত্মক সব রোগে আক্রান্ত হন, যার কোন চিকিৎসা নাই। কাজেই ভবিষ্যতে যারা ডাক্তার হওয়ার নিয়ত করেছেন, তাদের সব-কিছু জেনে-শুনেই সিদ্ধানত নেওয়া উচিত। সর্বোপরি পিতা-মাতাও উচিত হবে না, তাদের কোন সনতানকে জোরপুর্বক ডাক্তারী পেশায় নিয়োজিত করা।

ডাঃ বশীর মাহমুদ ইলিয়াস

লেখক, ডিজাইন স্পেশালিষ্ট, হোমিও কনসালটেন্ট

চেম্বার ঃ জাগরণী হোমিও হল

৪৭/৪ টয়েনবী সার্কুলার রোড (৩য় তলা),

(ইত্তেফাক মোড়ের পশ্চিমে এবং ষ্টুডিও ২৭-এর সাথে)

মতিঝিল, ঢাকা।

ফোন ঃ +৮৮০-০১৯১৬০৩৮৫২৭

E-mail : DrBashirmahmudellias@yahoo.com

Website : http://bashirmahmudellias.blogspot.com

Author: bashirmahmudellias

I am an Author, Design specialist, Islamic researcher, Homeopathic consultant.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s